বিট পুলিশিং

আপনার পুলিশ আপনার পাশে          তথ্যদিন, সেবা নিন          বিট পুলিশিং বাড়িবাড়ি, নিরাপদ সমাজ গড়ি

বিট পুলিশিং-

পুলিশের সেবাকে জনগণের নিকট পৌঁছে দেওয়া, সেবার কার্যক্রমকে গতিশীল ও কার্যকর করা এবং পুলিশের সাথে জনগণের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি করার উদ্দেশ্যে প্রতিটি থানাকে ইউনিয়ন ভিত্তিক বা মেট্রোপলিটন এলাকায় ওয়ার্ড ভিত্তিক এক বা একাধিক ইউনিটে ভাগ করে পরিচালিত পুলিশিং ব্যবস্থাকেই বলা হয় বিট পুলিশিং। এই ব্যবস্থায় প্রতিটি বিটের দায়িত্ব প্রদান করে এক বা একাধিক পুলিশ কর্মকর্তা নিয়োজিত থাকবেন।


লক্ষ্যঃ

পুলিশের সেবাকে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়া।


উদ্দেশ্যঃ

১। পুলিশের সেবাকে সরাসরি থানা থেকে তৃণমূল পর্যন্ত বিস্তৃতকরণ;
২। ইউনিয়ন/ওয়ার্ড পর্যায়ে নিবিড় পুলিশিং;
৩। থানায় মোতায়েনকৃত জনবলের সর্বোত্তম ব্যবহার;
৪। প্রান্তিক পর্যায়ে জনসম্পৃক্তির মাধ্যমে এলাকায় উত্থিত বা বিরাজমান সমস্যার প্রতিরোধ ও প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ;
৫। এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা ও অপরাধ সংক্রান্তে অগ্রিম গোপন সংবাদ এবং গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহের সক্ষমতা বৃদ্ধি;
৬। সমাজ থেকে অপরাধ ভীতি দূরীকরণ পূর্বক জনমনে স্বস্তি ও আস্থা স্থাপন করা;
৭। জনসাধারণের মধ্যে নিরাপত্তাবোধ (sense of security) তৈরিকরা।


বিট পুলিশিং এর গঠনঃ

গাইবান্ধা জেলার অধীনস্থ ৭টি থানাকে মোট ৯৩টি (গাইবান্ধা থানা -১৬টি, সাদুল্ল্যাপুর থানা-১১ টি,  সুন্দরগঞ্জ-১৮টি, পলাশবাড়ী-১১টি, গোবিন্দগঞ্জ-২০ টি, সাঘাটা-১০টি, ফুলছড়ি-৭ ট) বিট এ বিভক্ত করা হয়েছে। প্রতিটি বিটে একজন এসআই/ এএসআই যথাক্রমে বিট ইনচার্জ ও সহকারী বিট ইনচার্জ এর দায়িত্ব পালন করবেন। তাদেরকে সহায়তার জন্য ২ জন করে কনস্টেবল থাকবেন। বিট এলাকার নাগরিক/জনসাধারণ যে কোন বিষয়ে তাদের সহায়তায় সংশ্লিষ্ট এলাকার পুলিশিং সেবা গ্রহণ করতে পারবেন